mughal-turkish-influence-eid-fashion-তুর্কী-মুঘল-আরব্য-নকশাদার-ঈদ-ফ্যাশন

তুর্কী-মুঘল-আরব্য নকশাদার ঈদ ফ্যাশন

একটুখানি সোনালি-রূপালি স্পর্শ যেন আমাদেরকে এক ধাক্কায় নিয়ে যায় বাঙালি আটপৌরে উঠোন থেকে সেই মুঘলী কায়দায় ঘেরা এক রাজ-দরবারে।

ঈদ এলেই বছরকে বছর ফ্যাশনের পালে লাগে নতুন হাওয়া। আর সেই সাথে বিপুল আগ্রহ তো থাকেই নতুন কিছুর জন্য। কী আসছে এবার নতুন? কোন ফ্যাশন হাউজের কোন থিমটা এবার ঈদে বেশি মানানসই হবে? তবে এত নতুনত্বের মধ্যেও একটা পুরনো বিষয় বারবার বহুভাবে বাংলাদেশের ঈদ ফ্যাশনে, ঈদের পোশাকে উঠে এসেছে- তুর্কী, মুঘল ও আরব্য প্রভাব। কেবল ধর্মীয় প্রেক্ষাপট থেকেই নয়, পপুলার কালচার অথবা টেলিভিশন কিংবা সিনে পর্দারও বেজায় ইনফ্লুয়েন্স এই চাহিদাকে বাড়িয়েছে দিনকে দিন। সুলতান সুলেমান সিরিজ থেকে চরিত্রের নাম ধরে পোশাক হয়েছে- না হয়ে উপায় কী বলুন! পোশাকের নকশায় তাই এমন ডিজাইনের উপস্থিতি এখন অবিচ্ছেদ্য ব্যাপার, এবারের ঈদ ফ্যাশন ব্যাপারটা তেমনই।

তুর্কী টুপি জিন্দাবাদ!

এই ধরা যাক ঢিলেঢালা কাফতানের কথাই, নারী-পুরুষ নির্বিশেষে আরামের পোশাক হিসেবে বেছে নেন এটিকে। এই কাফতান কিন্তু তুরস্কেরও একটি জনপ্রিয় পোশাক। ভিন্ন রঙ, প্যাটার্ন ও ফেব্রিকের সমন্বয়ে ফ্যাশন হাউজগুলো এখন ঈদের সময়, এমনকি ঈদ ছাড়াও নিয়ে আসেন নিত্যনতুন সব কাফতান। কেননা গরমের দিনে তো ঢিলেঢালা পোশাকেই মেলে স্বাচ্ছন্দ্য।

টার্কিশ এমব্রয়ডারি বেশি জনপ্রিয় তাদের সূক্ষ্ম ফুলেল কারুকাজ আর জ্যামিতিক প্যাটার্নের জন্য। এবারকার ঈদের বাজারেও কিন্তু এই দুটো বিষয়কে আধিপত্য বিস্তার করতে দেখা যায়। জনপ্রিয় পোশাক ব্র্যান্ড ইয়েলোর পাঞ্জাবি, কুর্তি সবকিছুতেই রয়েছে ফ্লোরাল প্রিন্ট ও জ্যামিতিক প্যাটার্নের ছড়াছড়ি। অন্যান্য দোকানগুলোতেও এর খুব একটা ব্যতিক্রম দেখা যায় না। পোশাকে এই ছাপগুলো যেন নিজস্ব ঈদ আমেজের একইসাথে বয়ে আনে দূরদেশের আবহ।

লা রিভের ২০২৪ ঈদ কালেকশনের বেশিরভাগ পোশাকেই রয়েছে টার্কিশ মোটিফ ও ইসলামিক প্যাটার্নের ছড়াছড়ি। এতে মোট তিন ধরনের ফ্লোরাল প্রিন্ট রাখা হয়েছে। ফ্যান্টাসি ফ্লোরাল, বর্ডার প্রিন্ট হাইলাইটেড কার্টুন ফ্লোরাল এবং উজ্জ্বল রঙে অ্যাবস্ট্রাক্ট বা সাররিয়েল ফ্লোরাল প্রিন্ট।

featured image x LE REVE wear your dreams | Shop online: lerevecraze.com

অবশ্য তুরস্কের প্রভাব শুধু নির্দিষ্ট কিছু নকশাতেই কিন্তু থেমে নেই। বিলাসী কাপড়-চোপড় এবং তাতে জুড়ে দেয়া বিভিন্ন বাড়তি অনুষঙ্গও অটোম্যান ফ্যাশনের সাথে অঙ্গাঙ্গিভাবে জড়িত। আর নিয়মিত তারই দেখা মেলে বাংলাদেশের ঈদ ট্রেন্ডেও। ঈদ মানেই জমকালো পোশাক, ঈদ মানেই জরি-বুটি ছড়ানো জামা-কাপড়, এই ধারণা থেকে অনেকে বেরিয়ে আসতে থাকলেও সত্যিকার অর্থে ঈদের সর্বতো আমেজ যেন এইসব ঝলমলে পোশাকেই বাঁধা। আর এতে যে তুর্কী প্রভাব একটুও নেই, তা বললে ডাহা ভুল কথা বলা হবে। পোশাকের বিলাসিতা তুর্কী সাম্রাজ্যের অন্যতম জনপ্রিয় বিষয় এবং অনুকরণ ও অনুসরণের কোনো একটা ধারণা ঘিরে তা যে মানচিত্রের এই ধারটাতেও ভালোরকম জায়গা করে নিয়েছে, তা তো অধিকাংশ ঈদ– সেই অর্থে প্রায় উৎসবের সাধারণ পোশাক দেখলেই বোঝা যায়।

‘কুফি’ নামের পুরুষদের মাথার তুর্কী ধাঁচের টুপির আনাগোনা দেখা যাচ্ছে বাঙালির ঈদেও। এই টুপিগুলো সাধারণত ফেল্ট বা হাতে বোনা উলের সুতা, বা ভারি গোছের সুতি কাপড় দিয়ে তৈরি করা হয়। ঈদ যেহেতু ইসলাম ধর্মাবলম্বীদের অন্যতম প্রধান ধর্মীয় উৎসব, সেক্ষেত্রে ঈদে ইসলামিক আবহ আনতে তথাকথিত অধুনা পোশাকের সাথেও পরতে দেখা যাচ্ছে এই তুর্কী টুপি। তবে ফ্যাশনে আলাদা হচ্ছে না নারী-পুরুষ, জনপ্রিয় ফ্যাশন ব্র্যান্ড ‘ভার্গো’র নামে কন্যা থাকায় তারা নারীদের মাথাতেও চড়িয়েছে এই ফ্যাশনেবল তুর্কী টুপি। ঈদ ফ্যাশনে এইবার তাই বলাই চলে– তুর্কী টুপি জিন্দাবাদ!

featured image x VIRGO | Shop online: virgobd.com

পড়েছেন মুঘলের হাতে, পোশাক পরতেই হবে সাথে!

মুঘল আমল গত হয়েছে, সে বহু বছর আগের কথা। কিন্তু আমাদের চলনে-বলনে, জীবনযাপনের ধরনে এখনো কিন্তু মুঘলাই কায়দা একেবারে চলে যায়নি। দামি ফেব্রিক, সূক্ষ্ম কারুকাজ এবং জাঁকালো ভাবের বিষয়টি অবশ্য অনেকটা মুঘল ঘরানা থেকেও ধার করা, এ কথাও ঠিক। যেমনটা আমাদের উৎসব-অনুষ্ঠানের খাবার-দাবারে মুঘল স্বাদ রাজ্য বিস্তার করে, তেমনি আমাদের পরনের ধরনেও সেই মুঘলী বৈঠকের ছোঁয়া সর্বত্র লক্ষণীয়। অন্তত আমাদের ঈদের পোশাকে তো বটেই।

মুঘল ফ্যাশনের অন্যতম একটি উপাদান হচ্ছে জারদোজি এমব্রয়ডারি। সুতার কাজের এই বিশেষ পদ্ধতিতে ব্যবহার করা হয় বিভিন্ন ধাতব পদার্থ, অর্থাৎ সোনা, রূপা কিংবা তামার জরি ও সুতার। এতে করে পোশাকের নকশা হয়ে ওঠে আরো ঝলমলে, আরো জমকালো। ঈদ হোক, বিয়েবাড়ি হোক, শেরওয়ানি আর লেহেঙ্গা কিন্তু অন্যতম উদযাপনের পোশাক, যা কিনা মুঘল সাজ থেকেই অনুপ্রাণিত। তাই বাংলাদেশের ফ্যাশন শিল্পীরাও পোশাকে জারদোজির প্রয়োগ শিখেছেন, বিশেষ করে শেরওয়ানি ও লেহেঙ্গাতে এখন জারদোজির কারুকাজ অনেক বেশি পরিমাণে লক্ষণীয়। ঈদের পোশাকে একটুখানি সোনালি-রূপালি স্পর্শ যেন আমাদেরকে এক ধাক্কায় নিয়ে যায় বাঙালি আটপৌরে উঠোন থেকে সেই মুঘলী কায়দায় ঘেরা এক রাজ-দরবারে।

featured image x Sailor – Sailing Life | Shop online: sailor.clothing

আরব্য রজনীর ছোঁয়া লাগে, ঈদের ফ্যাশনে

এ বছরের ঈদ ফ্যাশনে ‘টুয়েলভ’ নিয়ে এসেছে জমকালো ফ্লোরাল প্রিন্টের আবায়া, যাতে একইসাথে খেলা করছে গাঢ় সব রঙের জাদু। লম্বা, ঢেউ খেলানো কারুকাজ ঘেরা পোশাককেই আবায়া বলা হয়। এর সৌন্দর্য বৃদ্ধিতে চাহিদাভেদে যোগ করা হয় সিকোয়েন্স, লেস, জরির পাড় ইত্যাদি আনুষঙ্গিক উপাদান। এই আবায়া মূলত আরব্য নারীদের ঐতিহ্যবাহী পোশাক থেকে অনুপ্রাণিত। ভালো করে খেয়াল করলে দেখা যাবে, আবায়া কিংবা গোল ঘেরের লম্বা জামা কিন্তু শুধু ঈদ নয়– বেশ অনেক বছর ধরেই বাঙালির সাজপোশাকে বিভিন্ন নামে, বিভিন্ন সময়ে বিশেষ জনপ্রিয়তা পেয়েছে। বিশেষ করে যে হিন্দি সিরিয়ালের জনপ্রিয়তা যখন তুঙ্গে যায়, তখন সিরিয়ালের চরিত্রদের নাম দিয়েও এ ধরনের পোশাক বিক্রির ধুম পড়ে যায়। আরব্য রজনীর গল্পের সেইসব রাজকন্যা কিংবা টিভি পর্দায় রাজত্ব করে বেড়ানো নায়িকাদের প্রতি মুগ্ধতা থেকে বাঙালি নারীরাও নিজেদের ঈদ-আনন্দে বেছে নেন আবায়ার মতো সংস্কৃতিভিন্ন পোশাক।

featured image x Twelve Clothing | Shop online: twelvebd.com

মুঘল স্টাইলের জারদোজি যেমন নজর কাড়ে, তেমনি আরব্য পোশাকের জ্যামিতিক প্যাটার্ন, ফ্লোরাল মোটিফ এমনকি পোশাকের মাঝে সুতার কারুকাজে তুলে নেয়া কোরআনের আয়াতও লক্ষণীয় হয় ঈদকে উপলক্ষ করে আসা বিশেষ পোশাকগুলোতে।

পোশাক যেকোনো সংস্কৃতিরই একটি অন্যতম ধারক ও বাহক। এবং সংস্কৃতির মধ্যে ধর্মের ভূমিকা বিশেষভাবে লক্ষণীয়। তাই ধর্মীয় উৎসবের পোশাকে যে ধর্মভিত্তিক শৈলীর উপস্থাপন ঘটবে, তাতে কোনো সন্দেহ নেই। আর ঠিক এ কারণেই বাংলাদেশের ঈদ ফ্যাশনে বিশ্ব মানচিত্রের ইসলাম ধর্ম বিশেষ জায়গা জুড়ে আছে, এমন সব অঞ্চল ও সংস্কৃতি থেকে মুঠিভরে গ্রহণ করা হয়েছে কিছু বিশেষ উপাদান ও সাজ। বিশেষ করে এবারের ঈদ ফ্যাশনে সেইলর, ভার্গো, ইয়েলো কিংবা টুয়েলভ– এই ব্র্যান্ডগুলোর কালেকশনে রয়েছে এই সব সংস্কৃতি ও সাজেরই প্রতিফলন। ঈদকে কসমোপলিটান রূপে নিজের পোশাকেও ফুটিয়ে তুলতে চাইলে ঢুঁ মেরে আসতে পারেন এই দোকানগুলো থেকে।

কিংবা দেশীয় ব্রান্ডগুলো কে কি থিম নিয়ে এবারের ঈদ কালেকশন করলো তা দেখতে পারেন এক ছাতার নিচে এই লিংকে। তারপর সিদ্ধান্ত নিতে সুবিধে হবে কোন ব্রান্ড থেকে কিনবেন আপনার প্রিয় পোশাকটি।

ঈদের পোশাক | EID-UL-FITAR 2024

ব্রান্ডগুলো ইংলিশ আলফাবেট অনুযায়ী সাজানো

কিংবা দেশীয় ব্রান্ডগুলো কে কি থিম নিয়ে এবারের ঈদ কালেকশন করলো তা দেখতে পারেন এক ছাতার নিচে এই লিংকে। তারপর সিদ্ধান্ত নিতে সুবিধে হবে কোন ব্রান্ড থেকে কিনবেন আপনার প্রিয় পোশাকটি।



About Post Author

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Social media & sharing icons powered by UltimatelySocial
error

আপনার একটি শেয়ার আমাদের জন্য অনুপ্রেরণা

X (Twitter)
Post on X
Pinterest
fb-share-icon
Instagram
FbMessenger
Open chat
1
Scan the code
Hello
How can i help you?
Skip to content