Parrot astrology

Parrot astrology

ভাগ্যের চিরকুট দিবে টিয়া পাখি | Parrot astrology

টিয়া পাখির আধ্যাত্মিক গুন দিয়ে লাল ঠোঁটে তুলে খামের ভিতর একটা চিরকুট। যা দিয়েই বদলে যেতে পারে আপনার ভাগ্য। তাহলে সত্যিই কি পাখি ভাগ্য গননা করতে পারে!

টিয়া পাখির আধ্যাত্মিক গুন দিয়ে লাল ঠোঁটে তুলে নিবে একটা খাম। খামের ভিতর একটা চিরকুট। যা দিয়েই বদলে যেতে পারে আপনার ভাগ্য। টিয়ার মালিক ( জ্যোতিষী ) চিরকুট দেখে বলে দিবে আপানার ভাগ্যে কি আছে আর সামনের দিনগুলোতে কি করতে হবে আপনাকে। অচিরেই বদলে যাবে আপনার ভাগ্য। তাহলে সত্যিই কি পাখি ভাগ্য গননা করতে পারে!

বনের পশু-পাখির অনেক গুণাগুন আছে। আধ্যাত্মিক গুণ। সাধারণ মানুষ এগুলো টের পায় না। ওরা পায়

মানুষ টিয়া পাখির কাছ থেকে নিজেদের ভাগ্য জেনে আনন্দ পায়। এ পর্যন্তই। এখানে ভাগ্য পরিবর্তনের কোনো খেলা নাই।

উপরের দুইটা মতই হলো জ্যোতিষীদের যারা টিয়া পাখি দিয়ে ভাগ্য গননার পেশায় জড়িত। আসলে মানুষ বিপদ কিংবা সংকটাপন্ন কোন অধ্যায়ের ভিতর থাকলেই এক ধরনের অস্থিরতার ভিতর দিয়ে যায়। তখনই এসব জ্যোতিষীদের শরণাপন্ন হয় থাকে।

সমস্যা সব মানুষের আছে, তা সে রাজা হোক আর প্রজা। কারুর টাকা আছে কিন্তু সন্তান নেই, কারুর সন্তান আছে কিন্তু স্ত্রীর সঙ্গে মিল নেই। পরীক্ষায় ভালো ফলাফল। প্রেমে সফলতা। বিদেশ যাত্রার সম্ভাবনা কিংবা যারা বিয়ে করতে পারছে না। বিয়েতে খালি প্যাঁচ লাগে! সবকিছুর সমাধান হয়তো আছে এই টিয়া পাখির গননায়।

ভাগ্যের চিরকুট দিবে টিয়া পাখি

Parrot astrology

রাস্তার কোনো মোরে তবে কিছুটা নির্জন একটা জায়গা বেছে নেয় এই ভাগ্যের ফেরিওয়ালা। খাঁচার ভিতর একটা কিংবা এক জোড়া টিয়া পাখি থাকে। সামনে ৪০-৪৫টি সাদা খাম সাজানো থাকে। সবগুলো এয়ার মেইলের খাম। মাত্র ১০ টাকা দিলেই জানা যাবে ভাগ্য। প্রতিটির ভিতরে একটি করে টুকরো কাগজ আছে। সে কাগজে ৫-৭টি লাইন লেখা আছে। বাক্যগুলোর ওপরে আউলিয়া বা নানা নবীর নাম লেখা থাকে। যেমন, ধরা যাক কোনো কাগজের ওপর ইউনূস নবীর নাম লেখা আছে। এই কাগজটি যার ভাগ্যে ওঠে তার অতিশয় মন্দ কপাল? ইউনূস নবীকে মাছে গিলে নিয়েছিল তাই তিনি আছেন শনির ফেরে। তবে তিনি শেষ পর্যন্ত রক্ষা পাবেন। এরকম কাগজ আছে খাজা মইনুদ্দিন চিশতী, জুনায়েদ বোগদাদী বা বড়পীর সাহেবের নামেও।

জ্যোতিষী তার খাঁচা থেকে সরু একটা লাঠি দিয়ে পাখিটিকে বের করে সাজানো খামের সামনে ধরেন। জ্যোতিষী কাস্টমারকে প্রথমেই নাম বলতে বলেন, কারণ নামের আদ্যাক্ষর দিয়ে রাশি বের করা যায়। যেমন অ, ল দিয়ে যাদের নাম শুরু তারা মেষ রাশির জাতক। জ্যোতিষী নিজেও নামটি উচ্চারণ করেন যেন পাখি তা শুনতে পায়। তারপর পাখিকে খামের ওপর ছেড়ে দেন অথবা লাঠিটি সামনে পিছনে নিয়ে একটু কাৎ করে ধরে। তখন টিয়া পাখি ঠোঁট দিয়ে একটি খাম বেছে নেয়। এবার খামের ভেতরে থাকা চিরকুট বের করে পড়ে শোনান জ্যোতিষী। বেশির ভাগ বাক্যগুলো সাধু ভাষায় লেখা থাকে।

Parrot astrology

টিয়া পাখি দিয়ে ভাগ্য গণনা

Parrot astrology

‘আমরা মানুষের সেবা করি। যদি কারও উপকার না-ও করতে পারি, অন্তত ক্ষতি তো করি না,’ দাবী এক জ্যোতিষীর।


আপনার একটি শেয়ার আমাদের জন্য অনুপ্রেরণা


Parrot astrology
Parrot astrology

পাখি দিয়ে ভাগ্য গণনার ইতিহাস

History of fortune telling birds

পাখি দিয়ে ভাগ্য গণনার বিষয়টি নতুন নয়। উপমহাদেশ ও ইরানে এ পেশা বহুকালের। ইরানে তো হাফিজের কবিতার মাধ্যমে ভাগ্য গণনা করা হয় আজও। এ প্রথা পরিচিত ফাল-ই হাফিজ নামে। ইরানসহ আফগানিস্তানের মতো ফারসিভাষী অন্যান্য অঞ্চলেও বহু শতাব্দী এভাবে টিয়া পাখির মাধ্যমে হাফিজের কবিতা দিয়ে ভাগ্য গণনার প্রথা রয়েছে। 

আর টিয়া দিয়ে ভাগ্য গণনা ভারতীয় উপমহাদেশে বহু প্রাচীন পেশা। মূলত দক্ষিণ ভারতে (তামিলনাড়ু, অন্ধ্র প্রদেশ) ভাগ্য গণনার এই প্রথা বেশি জনপ্রিয় ছিল। বাংলাদেশেও একসময় কমবেশি এ ধরনের ভাগ্য গণনার প্রচল দেখা যেত। কিন্তু মানুষ আগের চেয়ে সচেতন হয়ে ওঠায় ধীরে ধীরে এই পেশা এখন বিলুপ্তির পথে।

‘আচ্ছা, টিয়াপাখি কি সত্যি সত্যি ভাগ্য বলতে পারে?’


ভিডিওতে দেখুন টিয়া পাখি দিয়ে ভাগ্য গণনা


তথ্যসূত্র

tbsnews.net

mzamin.com


content writer


facebook page link : BFA


Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Social media & sharing icons powered by UltimatelySocial
error

আপনার একটি শেয়ার আমাদের জন্য অনুপ্রেরণা

X (Twitter)
Post on X
Pinterest
fb-share-icon
Instagram
FbMessenger
Open chat
1
Scan the code
Hello
How can i help you?
Skip to content